২৩ মাঘ, ১৪২৯ - ০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ - 06 February, 2023
amader protidin

নারীদের জন্য সাংবাদিকতার পথ নারী সাংবাদিকদেরই সুগম করতে হবে : ড. গীতিআরা নাসরিন

আমাদের প্রতিদিন
2 months ago
2K


জান্নাতুন লাকী:

সাংবাদিকতায় পেশায় থাকা নারীদের এখনো নারী ‘সাংবাদিক’ বলে বিবেচনা করা হয়, এবং এমন দুর্বল পরিচয়ের বলয় থেকে বেরিয়ে নারীদের শুধুমাত্র ‘সাংবাদিক’ পরিচয় প্রতিষ্ঠা করার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের অধ্যাপক ড. গীতিআরা নাসরিন।

শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) রাজধানীর একটি হোটেলে জার্মান গণমাধ্যম ডয়চে ভেলের আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম উন্নয়ন শাখা ডি ডব্লিউ একাডেমি বাংলাদেশ আয়োজিত ‘সেলিব্রেটিং ইয়ং উইমেন ইন জার্নালিজম এন্ড ফিউচার প্রসপেক্টস’ শিরোনামে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে তিনি আক্ষেপ প্রকাশ করে বলেন, সাংবাদিকতাকে এখনো ছেলেদের কাজ বলে মনে করা হয়। তবে আজ দেশের গণমাধ্যমে নারী সাংবাদিকদের যে অবস্থান তৈরি হয়েছে তা নূরজাহান বেগম ও রাজিয়া খান আমিন এর মত পথিকৃতদের অবদান উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখন যে নারীরা সাংবাদিকতা পেশায় আছেন এবং আসছেন, পরের প্রজন্মের জন্য নারী সাংবাদিকতার পথ আরো সুগম করার দায়িত্ব তাদেরই হাতে।

ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টার এর যুগ্ম সম্পাদক আশা মেহরীন আমিন তাঁর বক্তব্যে বলেন, দেশের অসংখ্য সংবাদমাধ্যমে এখনো মেয়েদের সংখ্যা অত্যন্ত কম, এবং বার্তাকক্ষের সিদ্ধান্তগ্রহণের জায়গায় তাদের সংখ্যা শূন্যের কোঠায়। যতদিন নারীরা বার্তাকক্ষের গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে পৌঁছাবেন না, সংবাদমাধ্যমের সিদ্ধান্তগ্রহণ পুরুষকেন্দ্রিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকেই পরিচালিত হবে, এবং সে অবস্থার পরিবর্তন করোতে হলে সবার আগে বার্তাকক্ষে নারীদের উপস্থিতি বাড়াতে হবে।

অনুষ্ঠানে তরুণ নারী সাংবাদিক ও সাংবাদিকতা শিক্ষার্থীর হাতে ‘ডি ডব্লিউ একাডেমি উইমেন জার্নালিস্ট মেন্টরশিপ প্রোগ্রাম’ এর সার্টিফিকেট তুলে দেন অতিথিরা। এ বছরের শুরুতে তিন মাসের মেন্টরশিপ প্রোগ্রামের আওতায় ২০ জন সাংবাদিক ও সাংবাদিকতার শিক্ষার্থীরা সাংবাদিকতার বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও মেন্টরশিপ গ্রহণ করেন, এবং ১০টি যৌথ অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করেন।

মেন্টরশিপ প্রোগ্রামের প্রধান মেন্টর, প্রথম আলো’র বিশেষ প্রতিনিধি রোজিনা ইসলাম মনে করেন এখনো নারী সাংবাদিকদের জন্য, বিশেষ করে যারা ঢাকার বাইরে ও ছোট গণমাধ্যমে কাজ করেন, প্রশিক্ষণ ও পেশাগত দক্ষতা বাড়ানোর সুযোগ অত্যন্ত কম। তরুণ নারী সাংবাদিক ও শিক্ষার্থীদের জন্য এমন মেন্টরশিপ আয়োজনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে আসা দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকরা তাদের মেন্টরশিপ ও সাংবাদিকতার বিভিন্ন ধরণের অভিজ্ঞতা ও চ্যালেঞ্জ তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে ডি ডব্লিউ’র পক্ষ থেকে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিনিয়র কসনালটেন্ট লুৎফা আহমেদ, ও মেন্টরশিপের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন প্রশিক্ষক মাইনুল ইসলাম খান।

ডি ডব্লিউ একাডেমি ২০১৪ সাল থেকে বাংলাদেশে সাংবাদিকতার শিক্ষাগত এবং পেশাগত উন্নয়ন, এবং মুক্ত গণমাধ্যমকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কাজ করছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সাথে সাংবাদিকতার পাঠ্যক্রম সংস্কার, ক্যারিয়ার সেন্টার ও মিডিয়া ল্যাব প্রতিষ্ঠা, কমিউনিটি রেডিও সাংবাদিকদের সক্ষমতা বৃদ্ধি, সাংবাদিকতা শিক্ষার্থীদের জন্য ফেলোশিপ ও স্নাতকদের জন্য গণমাধ্যমে ইন্টার্নশিপ, পেশাজীবি এবং নাগরিক সাংবাদিকদের জন্য বিনামূল্যে অনলাইন কোর্স তৈরি, সাংবাদিকতার শিক্ষক ও সাংবাদিকদের নিয়ে নেটওয়ার্কিং কনফারেন্স, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের জন্য বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণসহ বিভিন্ন আয়োজন করে আসছে ডি ডব্লিউ একাডেমি।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়