৭ আশ্বিন, ১৪৩০ - ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ - 22 September, 2023
amader protidin

বিপিএলের স্পিড মিটার নিয়ে রুবেলের সংশয়

আমাদের প্রতিদিন
7 months ago
270


ক্রীড়া ডেস্ক:

এবারের বিপিএলে প্রযুক্তিগত অনেক সুযোগ সুবিধা নেই। ডিআরএস নেই। নেই বল ট্র্যাকিং করার সুবিধা। ছক্কার দূরত্ব মাপার কৌশল। অনেক না পাওয়ার ভেতরে প্রাপ্তি রয়েছে বোলিং স্পিড মিটার। কিন্তু সেটা নিয়ে শুরু থেকেই সংশয়।

প্রায় প্রত্যেক দ্রুততম বোলারের বোলিং স্পিড ওলটপালট দেখাচ্ছে। বেশিরভাগ পেসারের গতিই ছাড়িয়ে যাচ্ছে ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার। অবিশ্বাস্যভাবে বেশ কিছু পেসার ছাড়িয়ে যান ১৪৭-১৪৮ কিলোমিটারও। খালি চোখে যাদের বোলিং গতি অনুমান করা যায় তাদের স্পিডও দেখাচ্ছে বেশি। এনিয়ে কিছুটা সংশয় তৈরি হয়েছে।

পেসার রুবেল হোসেনের চোখেও ধরা পড়েছে এমন কিছু। তাই তো তার মনেও সন্দেহ দানা বেঁধেছে। তরুণ পেসারদের গতি নিয়ে জানতে চাইলে বেশ উচ্ছ্বসিত হয়েছেন রুবেল। সঙ্গে স্পিড মিটার নিয়ে সংশয়ও প্রকাশ করেছেন, ‘এটা ভালো (তরুণ পেসারদের গতি)। তবে আমি জানি না আসলে এই মিটারটা পুরোপুরি ঠিক আছে কি না... তারপরও একটা নতুন পেস বোলার যখন দেখে, তার বলের স্পিড ১৪৫ কিলোমিটার। তার ভেতরে কিন্তু অনেক ভালো লাগা কাজ করে। কীভাবে আরো স্পিড বাড়ানো যায়। নিজের ভেতর আত্মবিশ্বাস... আমার কাছে মনে হয় খুবই ভালো লাগা কাজ করে।’

স্থানীয় পেসারদের মধ্যে খুলনার নাহিদ রানা জোরে বল করে এরই মধ্যে সুনাম কুড়িয়েছেন। যদিও তার লাইন ও লেন্থ নিয়ে কাজ করতে হবে প্রচুর। সিলেটের রেজাউর রহমান রাজা দ্যুতি ছড়াচ্ছেন নিয়মিত। এছাড়া তানজিম হাসান ভালো করছেন। জাতীয় দলের টেস্ট বোলার খালেদ আহমেদও সাদা বলে নিজেকে মেলে ধরেছেন। তাসকিন আহমেদ এখন সবার অনুপ্রেরণা। তরুণ পেসারদের উঠে আসা, নিয়মিত পারফর্ম করা ও গতির ঝড় তোলাকে রুবেল দেশের ক্রিকেটের সামগ্রিক উন্নতি হিসেবে দেখছেন।

তার ভাষ্য, ‘আমাদের দেশে অনেক তরুণ ক্রিকেটার আছে, তারা খুবই প্রতিশ্রুতিশীল। আমার কাছে মনে হয় তারা খুবই প্রতিভাবান, দেখছি সবাই খুবই জোরে বল করে। এটা আমাদের দেশের জন্য খুবই ভালো। আমি বিশ্বাস করি তারা জাতীয় দলকে লম্বা সময় সেবা দেবে।’

সর্বশেষ

জনপ্রিয়