১১ জানুয়ারি সারাদেশে বিএনপির গণঅবস্থান কর্মসূচি

আমাদের প্রতিদিন
2024-05-26 16:29:15

বিএনপি

ঢাকা অফিস:

আগামী ১১ জানুয়ারি সারাদেশে বিভাগ ও মহানগরে সকাল ১০টা থেকে ২টা পর্যন্ত চারঘণ্টা গণ-অবস্থান কর্মসূচির ঘোষণা করেছে বিএনপি।

শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) বিকেলে গণমিছিল পূর্ব সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন এই ঘোষণা দেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, প্রিয় ঢাকাবাসী যারা সকল বাধা উপেক্ষা করে গণমিছিলে উপস্থিত হয়েছেন সবাইকে ধন্যবাদ জানাই।

তিনি অবিলম্বে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ গ্রেপ্তারকৃত সকল রাজবন্দী ও নেতাকর্মীদের মুক্তি দাবি করেন। তিনি বলেন, ইতিপূর্বে আমরা ১০টি বিভাগীয় গণসমাবেশ শান্তিপূর্ণভাবে সফল করেছি। আজকের গণমিছিলও শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হবে।

তিনি বলেন, আমরা জনগণের পক্ষে দশ দফা ঘোষণা করেছি। তারই প্রথম কর্মসূচি হলো গণমিছিল। আজকে এসব দফার প্রতি দেশের সাধারণ মানুষ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দল এবং জোট সমর্থন জানিয়েছে। আমাদের ১০ দফার মূল হলো- অবিলম্বে গায়ের জোরের সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে।

এদিকে, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পতন, নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ববধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনসহ ১০ দফা দাবি নিয়ে বিএনপি গণমিছিল শুরু করে। শুক্রবার বেলা বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে মিছিলটি শুরু হয়। মিছিলটি কাকরাইল মোড়, শান্তিনগর, মালিবাগ, মৌচাক ও মগবাজার গিয়ে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

মিছিলে উপস্থিত আছেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বেগম সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, ব্যরিস্টার শাহজাহান ওমর বীর উত্তম, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেনসহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের হাজার হাজার নেতাকর্মী।

দুপুর দুইটায় মিছিল শুরু কথা থাকলেও সকাল থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে নয়াপল্টনে আসেন নেতাকর্মীরা। এসময় নয়াপল্টনের ভিআইপি রোড়ে যান চলাচল বন্ধ থাকে। একই দিন রাজধানীতে পৃথক গণমিছিল বের করে অন্য বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোও।

উল্লেখ্য, ১০ দফা দাবিতে গত ২৪ ডিসেম্বর সারাদেশে গণমিছিল করে বিএনপি। তবে একই দিন ঢাকায় আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক জাতীয় সম্মেলন থাকায় ঢাকায় এবং সিটি করপোরেশন নির্বাচনের কারণে রংপুর মহানগরের গণমিছিল কর্মসূচি পিছিয়ে ৩০ ডিসেম্বর নির্ধারণ করা হয়।

এদিকে, বিএনপির গণমিছিল কর্মসূচি ঘিরে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবিলায় নয়াপল্টনসহ রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে সকাল থেকে সতর্ক অবস্থানে দেখা গেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের।