ভেদরগঞ্জে ‘পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি’র উদ্বোধনকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

আমাদের প্রতিদিন
2024-06-18 14:58:29

খবর বিজ্ঞপ্তির:

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলায় পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বোধনকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় উপজেলার ৪১টি মাধ্যমিক শিক্ষা পতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠান প্রধান ও একজন করে সহকারী শিক্ষাক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান) উপস্থিত ছিলেন। মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের নিয়মিত পাঠ্যক্রম বহির্ভূত সৃজনশীল বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তোলার মাধ্যমে মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারের গৃহীত এ কর্মসূচিটি বাস্তবায়ন করছে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র।

কর্মশালায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এ.কে.এম জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সরকারি এম.এ. রেজা কলেজের প্রভাষক মো. আঃ রহমান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ভেদরগঞ্জ উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল। মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের টিম ম্যানেজার মোঃ জাফর হোসেন। এসময় বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের মনিটরিং অফিসার সমরেন্দু বিশ্বাস, অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার মো. নাজমুল হক ও মো. মাহফুজ হাসান এবং উপজেলার কর্মসূচিভূক্ত ৪১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও সংগঠকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কর্মশালার প্রধান অতিথি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ভেদরগঞ্জ বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, বর্তমানে শিক্ষার্থীরা বইপড়া থেকে দূরে সরে যাওয়ায় জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ গড়ে উঠছেনা। আমার কাছে মনে হয় একজন ভালো শিক্ষক হতে হলে অবশ্যই একজন ভালো পাঠক হতে হবে। জ্ঞান হলো আলোর মতো, আমরা যত বই পড়বো আমাদের জ্ঞান তত বৃদ্ধি পাবে। আমরা শিক্ষার্থীদের মাঝে সেই জ্ঞানের আলো তত ভালোভাবে বিকশিত করতে পারবো।

তিনি বলেন, মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব হওয়ার কারণ তারা বই পড়তে পারে কিন্তু অন্য প্রাণি তা পারে না। এজন্যই মানুষ সেরা। আরও বলেন, পড়া হলো নেশার মতো, এই নেশা ঘরে ঘরে তৈরি হোক। বুদ্ধিভিত্তিক সমাজ গড়ে উঠুক। সবার মাঝে বই পড়ার অভ্যাস গড়ে উঠুক। একটা আলোকিত সমাজ-দেশ গঠিত হোক।

এছাড়াও তিনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পর্যায়ে এই কর্মসূচি যথাযথ বাস্তবায়ন ও শিক্ষাকদেরও নিয়মিত বই পড়ার আহবান জানানকর্মসূচি পরিচালনা করার ব্যপারে সর্বাত্বক সহযোগিতা করার জন্য তিনি প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সংগঠকগকদের আহ্বান জানান এবং অত্র উপজেলায় পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

কর্মশালায় সভাপতি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপজেলা মাধ্যমিক অফিসার এ.কে.এম জাহাঙ্গীর আলম তাঁর বক্তব্যে বলেন, ফেরাউন তার খোদাইত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য দেশের মানুষের জন্য পড়াশোনা বন্ধ করে দিয়েছিল। কারণ মানুষ পড়লে বা জানলে তার খোদাত্ব থাকবে না। তাহলে আমাদের বুঝতে হবে বই পড়ার গুরুত্ব কত? এসময় তিনি সরকারের উদ্যোগকে সফলভাবে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানকে আরও উদ্যোগী হওয়ার আহবান জানান

উল্লেখ্য, মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন সেকেন্ডারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের (এসইডিপি) অন্তর্ভুক্ত স্ট্রেংদেনিং রিডিং হ্যাবিট অ্যান্ড রিডিং স্কিলস অ্যামাং সেকেন্ডারি স্টুডেন্টস স্কিম-এর মাধ্যমে দেশের ৬৪ জেলার ৩০০ উপজেলার ১৫ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।