পলাশবাড়ীতে ইউপি রাস্তার গাছ দিয়ে প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন করছেন ইউপি চেয়ারম্যান

আমাদের প্রতিদিন
2024-05-29 23:15:51

পলাশবাড়ী (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি :

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত নানা অজুহাতে ইউপি রাস্তার গাছ কর্তনের অভিযোগ উঠেছে। অবৈধভাবে ইউপি রাস্তা গাছ কর্তন করে সেই গাছের কিছু অংশ দিয়ে তিনি পরিষদের ১% বরাদ্দের অর্থে গ্রহণকৃত প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন করছেন ইউপি চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সামনে হাজিররঘাট মূখী পাকা রাস্তার মাথায় রাস্তার পাশে থাকা অনুমান ৫০ হাজার টাকা মূল্যের একটি ইউক্লিপর্টার্স গাছ কর্তন করে কাশিয়াবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা মৃত আব্বাস আলীর ছেলে মোজাফফর ও রইস উদ্দিনের ছেলে ফরিদুল নামে দুই প্রভাবশালী ব্যক্তি। এই দুই ব্যক্তি এলাকায় দাঙ্গাবাজ হিসাবে ও ইউপি চেয়ারম্যানের স্থানীয় খাস ব্যক্তি এবং অন্যতম সহযোগী হিসাবে ব্যাপক ভাবে পরিচিত। গাছ কর্তনের সময় স্থানীয় সাংবাদিক গাছ কর্তনের ছবি তুলতে গেলে মোজাফফর ও ফরিদুল ব্যবহার খারাপ করে বলেন কি করার আছে করেন চেয়ারম্যানের নির্দেশক্রমে গাছ কর্তন করা হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক জানান , পরিষদের সামনে একটি ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে সেটিতে একটু কাঠ লাগবে সেজন্য একটি গাছ কর্তন করতে বলেছি। অপর দিকে সচিব আনারুল ইসলাম পরিষদে থাকা অবস্থায় পরিষদের সামনের রাস্তায় গাছ কর্তন এর বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, ঘরটি পরিষদের ১% এর বরাদ্দ হতে নির্মাণ করা হচ্ছে। ঘরের জন্য কোন গাছ কাটার বিষয়ে তিনি জানেন না। চেয়ারম্যান ভালো বলতে পারবেন।

স্থানীয়রা জানান, প্রতি নিয়ত নানা অজুহাতে ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে এই দুই ব্যক্তি উক্ত রাস্তা ও পলাশবাড়ী হতে কাশিয়াবাড়ী বাজার মুখী রাস্তার ইউক্লিপটাস গাছ কর্তন করে । এর আগে গত ২১ আগস্ট তারা আরো একটি মোটা গাছ কর্তন করে যার ডালপালা বিক্রি করা হলেও গাছের কিছু অংশ ফারাই করে ইউনিয়ন পরিষদের সামনে রেখে দেয় চতুর চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক । ২৩ আগস্ট ভোরে একই কায়দায় আরেক একটি গাছ কর্তন করা হয়। গাছ কর্তনের পর গাছের গোড়ার কাটা অংশ মাটি দিয়ে ঢেকে দেয়।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল হাসান জানান, কিশোরগাড়ী ইউনিয়নে গাছ কর্তনের বিষয়ে আমাকে জানানো হয়নি বা অনুমতি নেওয়া হয়নি। উক্ত বিষয়ে সরজমিনে দেখে ও জেনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

উল্লেখ্য, ইউপি চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক দায়িত্ব গ্রহনের পর হতে উক্ত ইউপি রাস্তার গাছ গুলো সরকারি ছুটির দিন কখনো দিনে আবার কখনো রাতে আধারে এভাবে একটি দুটি করে গাছ কর্তন করা হলেও সংশ্লিষ্টরা নিরব ভূমিকা পালন করায় জনমনে নানা জল্পনা কল্পনা চলমান রয়েছে।