১৭ ফাল্গুন, ১৪৩০ - ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ - 29 February, 2024
amader protidin

রংপুর সিটি নির্বাচনে উজ্জীবিত জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা

আমাদের প্রতিদিন
1 year ago
198


শুক্রবার প্রথম নির্বাচনী পথসভা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী হিসাবে দলটির কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য, মহানগর কমিটির সভাপতি ও সদ্য সাবেক মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা মনোনীত করায় উজ্জীবিত জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা। ইতিমধ্যেই নির্বাচন পরিচালনা কমিটি ও সেন্টার কমিটি গঠন চুড়ান্ত করেছে দলটি। এর ফলে দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা নির্বাচন মাঠ গরম রাখতে তৎপরতা চালাচ্ছেন। আগামী শুক্রবার প্রতীক বরাদ্দ হওয়ার পর আরোও জোরো প্রচার-প্রচারণা চালাবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার প্রতীক বরাদ্দ হবার পরেই জাতীয় পার্টির মনোনীত  লাঙ্গল মার্কার মেয়র প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা নগরীর মাওলানা কেরামত আলী (রহ:) এর মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা শুরু করবেন। এর পর তিনি দর্শনাস্থ পল্লী নির্বাসে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি ও  জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের কবর জিয়ারত করবেন। পরে বিকেলে নগরীর ৩২ নং ওয়ার্ডের বারো আউলিয়া ধান গবেষণা এলাকায় নির্বাচনী  পথসভা করবেন।

জানা যায়, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের সঙ্গে বিরোধ চললেও রংপুর সিটির মেয়র প্রার্থী হিসাবে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে সমর্থন করেছেন দলটির প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। যদিও অনেক আগেই পার্টির চেয়ারম্যান ও মহাসচিব তাকে দলের প্রার্থী হিসাবে মনোনীত করেন। কিন্তু কাদের-রওশনের বিরোধের কারণে গুঞ্জন ছিল চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের প্রার্থীর বিরুদ্ধে পালটা প্রার্থী দেবেন রওশন। কিন্তু দুজনের ‘ঐক্যমত’র ভিত্তিতে তাকে মনোনীত করেছেন। এ কারণে রংপুর জাতীয় পার্টিতে স্বস্তি বিরাজ করছে। নেতাকর্মীরা উজ্জীবত হয়ে মোস্তফাকেই বিজয়ী করতে মাঠে নেমেছেন।

জাতীয় পার্টির বিভিন্ন ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা জানান, রংপুর হচ্ছে পল্লীবন্ধু এরশাদের জন্মস্থান এবং লাঙ্গলের ঘাটি। এখানে বরাবরই জাতীয় পার্টি জয়লাভ করে আসছে। গত সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে জয়লাভ করে জাতীয় পাটির প্রার্থী। এবার জনপ্রিয়তার দিক থেকে মোস্তফার সমতুল্য কেউ না থাকায় বেশ সুবিধায় রয়েছে। নেতাকর্মীরাও সু-সংগঠিত। এখানে জয়ের বিকল্প নেই।

এ ব্যাপারে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক, জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান ও মহানগর সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াসির বলেন, জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে মেয়র প্রার্থী নির্বাচনের অনেক আগেই ঘোষণা করায় আমরা ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়ার সময় পেয়েছি। এরই মধ্যে সেন্টার কমিটি গঠন করা হয়েছে। নির্বাচন পরিচালনা কমিটিও গঠিত হলো। আমাদের ওয়ার্ড পর্যায়ের শক্তিশালী কমিটি রয়েছে। এছাড়া মহানগরের প্রতিটি অঙ্গসংগঠনের সক্রিয় কমিটি রয়েছে। নগরবাসীর ভালোবাসার ভোটে আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন। পুনরায় তিনি মেয়রের আসনে বসবেন বলে আমরা শতভাগ আশাবাদী।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ২৭ ডিসেম্বর রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহণ করা হবে। ৯ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের পর শুরু হবে নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা। এবারের নির্বাচনে ১০জন মেয়র প্রার্থী নির্বাচন করছেন।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়